সংবাদ শিরোনাম :

Advertisement

ঝালকাঠিতে স্বর্ণ কিশোরীকে নির্যাতন মামলা হলেও গ্রেপ্তার হয়নি আসামি

ঝালকাঠিতে স্বর্ণ কিশোরীকে নির্যাতন মামলা হলেও গ্রেপ্তার হয়নি আসামি

স্টাফ রিপোর্টার ঃ
ঝালকাঠিতে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ঘরে ঢুকে স্বর্ণ কিশোরী খেতাবপ্রাপ্ত কলেজ ছাত্রী নাছরিন আক্তার সারার (১৭) ওপর হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে ঝালকাঠি থানায় নির্যাতনের শিকার সারা বাদী হয়ে এ মামলা করেন। মামলায় আসামি করা হয়েছে হামলাকারী জুবায়ের আদনানকে (২২)। জুবায়েব একটি বেসরকারি টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধির ব্যক্তিগত ক্যামেরাম্যান। শুক্রবার দুপুরে শহরের ফকির বাড়ি সড়কে সারার বড় বোনের বাসায় অতর্কিত হামলা চালায় জুবায়ের আদনান। আহত সারাকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সারা ঝালকাঠি আকলিমা মোয়াজ্জেম ডিগ্রি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী। এদিকে মামলা তুলে নিতে সারার পরিবারকে জুবায়েরের সহযোগীরা চাপ প্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সারার বড় বোন আখিনুর আক্তার শনিবার দুপুরে সাংবাদিকদের এ অভিযোগ করেন। মামলা তুলে না নিলে তাদের নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালানোর হুমকি দেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যেই কয়েকটি ফেসবুক আইডি দিয়ে সারার নামে নানা অপপ্রচার করা হচ্ছে। এমনকি সারার ফেসবুক আইডিও হ্যাক করে নিয়েছে জুবায়ের আদনান। এতে সারা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন বলে তাঁর বড় বোন জানান। অপরদিকে নির্যাতনের শিকার সারার পাশে দাঁড়িয়েছে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর। হামলার খবর শুনে রাতেই হাসপাতালে সারাকে দেখতে যান সদর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাসরিন আক্তার। তিনি সারার পাশে থেকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এছাড়াও স্বর্ণ কিশোরী ফাউন্ডেশন, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সাইডো ও নারীপক্ষ সারাকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।
মামলার বরাত দিয়ে থানা পুলিশ জানায়, ঝালকাঠি সদর উপজেলার পোনাবালিয়া ইউনিয়নের একটি মসজিদের ইমাম জাকির হোসেনের ছেলে বেসরকারি একটি টেলিভিশনের সাংবাদিকের ব্যক্তিগত ক্যামেরাম্যান জুবায়ের আদনান বেশকিছুদিন ধরে নাছরিন আক্তার সারাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। সারা প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করলে আদনান তাঁর ওপর ক্ষিপ্ত হয়। প্রায়ই পথেঘাটে তাকে উত্ত্যক্ত করা শুরু করে আদনান। শুক্রবার দুপুর একটার দিকে জুবায়ের আদনান ফকিরবাড়ি সড়কের সরার বড় বোন আখিনুরের ভাড়া করা বাসার দরজায় নক করে। দরজা খোলার সাথে সাথে আদনান সারার ওপর হামলা চালায়। মারধরের এক পর্যায়ে সারা জ্ঞান হারিয়ে ফেললে, আদনান পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে বড় বোন ও প্রতিবেশীরা সরাকে উদ্ধার করে প্রথমে ঝালকাঠি সদর থানায় নিয়ে আসে। সেখান থেকে তাকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে ঝালকাঠি থানায় সারা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। ঝালকাঠি থানার ওসি খলিলুর রহমান বলেন, মামলার আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। আহত সারার চিকিৎসা চলছে সদর হাসপাতালে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 www.jhalakatibarta.com
Developed BY Website-open.com
error: Content is protected !!