সংবাদ শিরোনাম :

Advertisement

উজিরপুরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্মানাধীন ৪ তলা ভবন ভেঙ্গে পড়ার আশঙ্কা

উজিরপুরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্মানাধীন ৪ তলা ভবন ভেঙ্গে পড়ার আশঙ্কা

রাহাদ সুমন:
বরিশাল শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে উজিরপুর আলিম মাদ্রাসায় পৌনে তিন কোটি টাকায় ৪ তলা একাডেমিক ভবনের একতলার নির্মাণ কাজ শেষ হতে না হতেই হুমকির মুখে ওই ভবনটি। একতলার ছাদ ঢালাইয়ের মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে সেন্টারিং খুলে ফেলায় ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম হওয়ায় স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ওই ভবনে নিম্নমানের বালি, খোয়া ও রড দিয়ে কাজ করারও অভিযোগ রয়েছে । ভবন নির্মাণ কাজের দেখভালের দায়িত্বে থাকা প্রকৌশলী সালমানের বিরুদ্ধে রয়েছে অনিয়মে সহায়তার অভিযোগ। সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালে এসসিজেভি লিঃ নামক একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী সুমন আহমেদ ওই ভবনের কাজটি পান। চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারী স্থাণীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ শাহে আলম ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। কিছুদিন পরে ওই ভবনের কাজ শুরু করেন সাব কন্ট্রাক্টর মোতালেব হোসেন। গত ৯ জুলাই ঐ ভবনের ছাদ ঢালাইয়ের কাজ শেষ করার মাত্র ৮দিন পরে ১৭ জুলাই শুক্রবার ভবনের সেন্টারিং খুলে ফেলা হয়। বিষয়টি দেখে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোঃ নুরুল হক আজাহারী ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কামাল হোসেন সবুজ রাজ মিস্ত্রিদের নির্ধারিত সময়ের আগে (২১ দিন) ভবনের সেন্টারিং খুলতে নিষেধ করেন। কিন্তু তাদের কথায় কর্নপাত না করে পুরো বারান্দার সেন্টারিং খুলে ফেলে তারা দ্বিতীয় তলার সেন্টারিং করা শুরু করেন। তবে বাধার মুখে পুনরায় ১৮ জুলাই শনিবার খুলে ফেলা সেন্টারিং কিছু কিছু সংযুক্ত করে দেয়া হয় বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বরিশাল জোনের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বিষয়টি শুনে ওই ভবনের কাজ তদারকির দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলী সালমান আহমেদকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে প্রকৌশলী সালমান আহমেদকে বারবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। ঠিকাদার সুমন আহমেদ জানান, রাজ মিস্ত্রিরা ভুল বশতঃ কাজটি করে ফেলেছে। প্রধান রাজমিস্ত্রি রুবেল বলেন, বিষয়টি আমাদের ভুল হয়েছে। মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি কামাল হোসেন সবুজ জানান, ভবনটির কাজ সন্তোষজনক নয়। ৮ দিনের মধ্যে সেন্টারিং খুলে ফেলায় ভবন ভেঙ্গে পড়ার আশংকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ নুরুল হক আজাহারী জানান, তারা মাদ্রাসার পাশ দিয়ে হাটতে ভয় পাচ্ছেন। উজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রনতি বিশ্বাস জানান, বিষয়টি শুনেছি, তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 www.jhalakatibarta.com
Developed BY Website-open.com
error: Content is protected !!